বাংলাদেশি-বাঙালি প্রশ্নে

আজিকে খোমাখাতায় একখানা প্রশ্নের সম্মুখীন হইলাম; বাঙালি না বাংলাদেশী কোন পরিচয় বেশি গর্বের । উত্তর দিতে গিয়া প্রথমেই মনে আসিল, কেহ জিজ্ঞাসা করিলে, তৎক্ষণে অতিশয় গর্বের সহিতই কহি, বাংলাদেশ হইতে আসিয়াছি আমি ।

বাংলাদেশ শব্দখান অনেকটা আপন গৃহের অনুভূতি দেয় । আবার বাঙালি, বাংলা ভাষাভাষী এইসকল পরিচয়ের রহিয়াছে ভিন্নতর গৌরব-আভিজাত্য ও অনুভূতি ।
ইহা আমাদিগের উৎসের পরিচয় দেয়, ইহা বংশগৌরবের অংশ — কিন্তু ভারতে, আসামে, বিহারে, ত্রিপুরায় ও বাঙালি বাস করিয়া থাকে; ঠোক যেইরূপ ইরাকে, কুয়েতে, মিশরে, কাতারে, সাহারায় সকলেই আরব অথচ তাহাদের পরিচয় ইরাকি, কুয়েতি, মিশরী – ঢালাও ভাবে আরবি নয় । একইরকম, আম্রিকায় অনেক ইংরেজ-বংশধর রহিয়াছে কিন্তু তাহারা ইংলিশম্যান নহে, আবার ব্রিটেনেও থাকেন ইংলিশ, স্কটিশ, আইরিশ, – যাহাদের জাতীয়তা লিখিত হয় ব্রিটিশ । সুতরাং, বলিতে গেলে উভয় পরিচয়ই ভিন্ন ভিন্ন পরিসরে আপন । বাংলাদেশ কহিলে আপন পাড়া, আপন গৃহ মনে হয় – বাঙালি কহিলে আপনার ভাই, না-দেখা আত্মার জন মনে হয় ।

তবুও যদি প্রশ্ন আসিয়াই যায়, কোনটা লয়ে অধিক গর্ব করিবো? কহিব, তবুও সবুজ এই পাসপোর্ট-খানাই না বড্ড বেশি ভালো লাগিয়া থাকে, তবুও বাংলাতেই ভাব জানাইতে-জানিতে মন চায় ।

Advertisements

Published by

nafSadh

I study theory and applications of computing sciences.

5 thoughts on “বাংলাদেশি-বাঙালি প্রশ্নে”

  1. শেষ্মেশ তো সেই “ডিম্ব পূর্বে না কক্কট পূর্বে” প্রশ্ন রাখিয়াই দিয়াছ, জবাবখানা কোঁচর হইতে বাহির করতঃ আমাদিগের দৃষ্টির গোচরে আনিলে না।

    আমরা আপন দেশের মধ্যে থাকিলে বাঙ্গালী, বহির্দেশে গমন করিলে বাংলাদেশী। স্বাধীনতার পূর্বে আমাদিগের বাঙ্গালী পরিচয় যতখানি অর্থবহন করিত, এখন ততখানি করে না বলিয়াই বোধ হয়। আমি স্ব পরিচয় বাংলাদেশি দিতেই তাই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করিব, ক্ষেত্রবিশেষ ব্যতিরেকে।

    Like

    1. জবাবখানা কিন্তুক, আমি কথনের প্রথমেই দিয়াছি…

      Like

      1. “আমি কক্কটই দেখিয়াছি প্রথম।
        – তবু কক্কট আসিতে হইল আন্ডা তো লাগিবেই। তবু আন্ডা পাড়িতে হইলে কক্কট লাগিবেই।”

        তদীয় পোস্টখানা আমার নিকট এইরুপ মনে হইয়াছে।

        খেমোখাতার লিঙ্কখানাতে অবশ্য পরিশেষে “তবুও বাংলাতেই ভাব জানাইতে-জানিতে মন চায় ।” বিশেষাংশটুকু দেখিতে পাই নাই।

        Like

      2. ঘটনা তো তাহাই, কাহারে রাখিয়া কাহাকে বলিবো? এই প্রশ্নের উত্তর পাই না। আর পাই নাই বলিয়াই তো পোস্ট করিয়া সর্বজনেরে জিজ্ঞাস করিতেছি ।
        তবে, ইহা সত্য বাংলাদেশের মানুষকে যত আপন বোধ হইয়া থাকে, ভিন্নদেশের বাঙালিকে ততটা আপন বোধ হয় নাই ।

        Like

  2. “ধুস” না বলিয়া পারলাম না। কারণ মেমনেন এর প্রতুত্তর খানাটিকে “লাইক” তথা পছন্দ না দিতে পারায় হতাশ।

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

w

Connecting to %s